Hot!

সামরিক ক্ষেত্রে কতো শক্তিশালী রাশিয়া! জেনে নিন


সামরিক শক্তিতে যুক্তরাষ্ট্রের পরই রাশিয়ার অবস্থান। বিশ্বের অন্যতম বৃহত্তম দেশ এটি। পাশাপাশি পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি খনিজ সম্পদ রয়েছে এই রাশিয়াতেই। এছাড়া বিশ্বের বৃহত্তম অস্ত্রবিক্রেতা ও নির্মাতা রাষ্ট্র রাশিয়া। এবার জেনে নিন সামরিক শক্তিতে কতটা শক্তিশালী রাশিয়া।
সোভিয়েত ইউনিয়ন ভেঙে যাওয়ার পর ১৯৯২ সালে ৭ মে তৎকালীন রাশিয়া ফেডারেশনের প্রেসিডেন্ট বরিস ইয়েলৎসিন সোভিয়েত আর্ম ফোর্সের সদস্য ও সরঞ্জাম নিয়ে প্রতিষ্ঠা করেন রাশিয়ান সামরিক বাহিনী। সোভিয়েত ইউনিয়ন পতনের আগে এটি ছিল বিশ্বের অত্যন্ত শক্তিশালী সামরিক বাহিনী। যা সেই সময় সৈন্য এবং পারমাণবিক অস্ত্র সংখ্যার দিক থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের চেয়ে এগিয়ে ছিল। 
স্থল বাহিনী, বিমানবাহিনী, নৌবাহিনী, স্ট্র্যাজিক রকেট ফোর্স, বিশেষ বাহিনী এবং এয়ারবোম ট্রুপস নিয়ে রাশিয়া ফেডারেশনের সামরিক বাহিনী গঠিত। 
রাশিয়া
নিয়মিত সেনা সদস্য- ১০,৪০,০০০,
রিজার্ভ আর্মি- ২০,৩৫,০০০
আধা-সামরিক বাহিনীতে রয়েছে- ৪,৪৯,০০০
সাঁজোয়া ট্যাংক- ২২,৭১০টি
বিমানবাহী যুদ্ধজাহাজ- ১টি
উভচর যুদ্ধজাহাজ- ১৫টি
ক্রুজার- ৫টি
ডেস্ট্রয়ার যুদ্ধজাহাজ- ১৪টি
ফ্রিগেট- ৫টি
করভিট যুদ্ধজাহাজ- ৭০টি
নিউক্লিয়ার সাবমেরিন- ৩৩টি
সাবমেরিন- ১৭টি
যুদ্ধবিমান- ১,২৬৪টি
বোমারু বিমান- ১৯৫টি
জঙ্গিবিমান- ১,২৬৭টি
সাঁজোয়া হেলিকপ্টার- ১,৬৫৫টি
পরমাণু অস্ত্র- ১২ হাজার
রাশিয়া বিশ্বের অনেক দেশে অস্ত্র রপ্তানি করে থাকে। দুনিয়ার সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত এবং জনপ্রিয় অটোমেটিক রাইফেল একে-৪৭-এর নির্মাতা ও ডিজাইনার রাশিয়ার লেফটেন্যান্ট জেনারেল মিখাইল কালাশনিকভ। এ পর্যন্ত প্রায় ১০ কোটিরও অধিক এই অস্ত্র বিক্রি হয়েছে এবং বিশ্বের প্রায় ৫০টিরও বেশি দেশের সামরিক বাহিনীতে এটি ব্যবহৃত হচ্ছে।