Hot!

অ্যান্ড্রয়েড ফোনে পর্ন দেখেন? ৪ কারণে সাবধান!

পর্নোগ্রাফি দেখার ওপর কোনও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেনি ভারত সরকার। কিন্তু অ্যান্ড্রয়েড ফোনে তা না দেখাই ভালো, কারণ অজান্তে হানা দিতে পারে সাইবার অপরাধীরা।
ভারতে ইন্টারনেট মারফত পর্নোগ্রাফি দেখার চাহিদা প্রতিদিন বাড়ছে। দেশের নেট ইউজারদের মধ্যে পিসি-র তুলনায় অ্যান্ড্রয়েড হ্যান্ডসেট ব্যবহারের চল বেশি। পর্ন রসিকদের জন্য ওয়েবে অসংখ্য পর্ন অ্যাপ ছেড়েছে গুগল প্লে। এছাড়া রয়েছে কয়েক লক্ষ পর্ন ওয়েবসাইট। সাইবার অপরাধ বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, যৌনতা প্রদর্শনের সুড়সুড়ি দিয়ে ইউজারের অজান্তে তাঁর যাবতীয় গোপনীয় তথ্য হাতিয়ে নিচ্ছে দুষ্কৃতীরা।
কীভাবে ঘটছে অপরাধ?
১) অবৈধ VAS সাবসক্রিপশন
বেশির ভাগ পর্নই বিনামূল্যে পাওয়া যায়। তবে তার আড়ালে রয়েছে বাঁকা পথে টাকা আদায়ের ফন্দি। গ্রাহকের অজান্তে পর্ন ওয়েবসাইটগুলি অবৈধ VAS সাবসক্রিপশন বাবদ অর্থ রোজগার করে। অর্থাত্‍ যে মুহূর্তে অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন মারফত তিনি পর্ন ওয়েবসাইটে প্রবেশ করেন, সঙ্গে সঙ্গে ব্যাকগ্রাউন্ডে এই সাবসক্রিপশন চালু হয়ে যায়। বিভিন্ন জুস-আপ প্যাক, ড্রিমগার্ল প্যাক, জ্যোতিষশাস্ত্র প্যাকে গ্রাহককে নথিভুক্ত করা হয়। আবার গ্রাহকের নজর এড়াতে সাবসক্রিপশন রেট দিনপিছু মাত্র ৫ থেকে ৩৫ টাকার মধ্যে রাখা হয়।
যদি বিনা কারণে আচমকা হু হু করে মোবাইল ফোনের ব্যালান্স কমতে দেখা যায়, দ্রুত ব্যবস্থা নিতে হবে। 155223 নম্বরে এসএমএস করতে হবে "STOP", এরপর যে নির্দেশ পাওয়া যাবে তা মেনে পদক্ষেপ করলে অবাঞ্ছিত অ্যাপ মুছে ফেলা যাবে। অ্যান্ড্রয়েড ফোনে পর্ন দেখতে গিয়ে এই হেনস্থা এড়াতে প্রথমে ফোন এয়ারপ্লেন মোড-এ সুইচ অন করতে হবে। তারপর ওয়াইফাই ব্যবহার করে পর্ন ওয়েবসাইট খুললে বিপদের সম্ভাবনা নেই।
২) পর্ন টিকারের উত্‍পাত
অ্যানড্রয়েড ফোনে পর্ন দেখার এক বড় সমস্যা হল পর্ন টিকারের হানা। নিরীহ অ্যাপের ছদ্মবেশ ধারণ করিয়ে এই টিকারগুলি ছাড়া হয়। পর্ন দেখার সময় প্লে স্টোরে গিয়ে কোনও গেমস অ্যাপ ডাউনলোড করতে গেলে নানান জনপ্রিয় গেমস অ্যাপ হিসেবে এদের দেখা যায়। মনে রাখা দরকার, অ্যান্ড্রয়েড ফোনে পর্ন দেখতে হলে সব সময় ইনকগনিটো মোডে দেখা উচিত। এর ফলে কোনও ওয়েবসাইট আপনার পিছু তাড়া করতে পারে না। এর সঙ্গে নিয়মিত ক্যাশে ক্লিয়ার করতে হবে। কোনও অ্যাপ ডাউনলোড করার আগে তার ক্রেডেনশিয়ালস দেখে নিন।
৩) প্রশ্ন নিরাপত্তার
যে অ্যান্ড্রয়েড ফোনে আপনার প্রধান জিমেল আইডি রয়েছে এবং সেই সঙ্গে ব্যাহ্কিং অ্যাপ ডাউনলোড করা আছে, তার থেকে পর্ন দেখার চেষ্টা না করাই ভালো। মনে রাখবেন, আপনার নির্দিষ্ট অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোনের নিরাপত্তা ও গোপনীয়তা এবার সাইবার অপরাধীদের মুঠোর ভিতর চলে গিয়েছে।
৪) র‌্যানসমওয়্যার্স
আসলে অনলাইনে কোনও কিছুই বিনামূল্যে মেলে না। যে কোনও জিনিস বা পরিষেবা পেতে গেলে তার দাম দিতে হবে। কখনও নগদ আবার কখনও ডেটার বিনিময়ে দাম চুকোতে হয়। র‌্যানসমওয়্যার হল অত্যাধুনিক ম্যালওয়্যার যা যে কোনও ডিভাইসকে আচমকা লক করে দেয়। এরপর নির্দিষ্ট দাম চুকিয়ে ডিভাইসটি ফের চালু করার জন্য ইউজারের ওপর চাপ তৈরি করা হয়। উল্লেখ্য, র‌্যানসমওয়্যারের দৌলতে ডিভাইসে থাকা যে কোনও তথ্য সাইবার দস্যুদের কুক্ষিগত হয়। মূল্য চুকিয়ে ডিভাইস আনলক করলেও সেই সমস্ত তথ্যের গোপনীয়তা সুরক্ষিত থাকার কোনও গ্যারান্টি থাকে না। বেশ কিছু চালু পর্ন ওয়েবসাইট এর মধ্যে র‌্যানসমওয়্যার ব্যবহারে পারদর্শী হয়ে উঠেছে।