Hot!

প্রযুক্তি খাতে বিনিয়োগ করে লাভবান হতে হলে...


যদি প্রযুক্তি খাতে বিনিয়োগ করে ধনী হতে চান, তবে ক্রমবর্ধমান কোনো পাবলিক কম্পানিতে বিনিয়োগ করা উচিত। বড় বড় সব টেক জায়ান্ট এমনই প্রতিষ্ঠান। মাত্র শুরু করেছে কিন্তু সম্ভাবনাময়, এমন প্রতিষ্ঠানে বিনিয়োগ করলেও লগ্নি ঝুঁকির মুখে পড়তে পারে। এতে আপনার অবস্থান নিরপেক্ষভাবে নাও দেখা হতে পারে। আবার ৫ বছর ধরে যদি একটি প্রতিষ্ঠান দাঁড় করানোর পেছনে সময় দেন তবে ব্যর্থ হলেও প্রচুর অভিজ্ঞতা লাভ করবেন। বিশেষজ্ঞরা এখানে জানিয়েছেন, টেক খাতে বিনিয়োগ করে ধনী হতে কি পদক্ষেপ নেওয়া উচিত।

১. প্রথমেই ঠিক করে নিন আপনি কি করবেন। নতুন কোনো প্রতিষ্ঠানে যোগ দেবেন। নাকি পুরোনো কোনটিতে। আবার এ প্রতিষ্ঠানে নিজের কি ভূমিকা দেখতে চান, তাও ঠিক করুন। আপনি বিভিন্ন স্থানে গিয়ে কাজ করতে চান বা পরোক্ষভাবে কাজ করতে চান। আগে নিজের অবস্থান ঠিক করে নিতে চান।

২. নতুন প্রতিষ্ঠানে যোগ দিতে আপনি হলে নিজের চাহিদাগুলো ঠিক করে নিন। নতুন শ খানেক প্রতিষ্ঠান বের করুন। এদের মধ্যে ৫০টির সঙ্গে যোগাযোগ করুন। ২০টি প্রতিষ্ঠানে ইন্টারভিউ দিন। সব প্রতিষ্ঠান থেকে ২-৩টি করে ভালো প্রস্তাব বেরিয়ে আসবে। এখান থেকে ঠিক করুন কি করতে চান।

৩. উন্নত সংস্কৃতি ও গুণসম্পন্ন মানুষে পূর্ণ প্রতিষ্ঠান বেছে নেওয়ার চেষ্টা করুন। প্রতিষ্ঠানটি আপনার চাহিদা না পূরণ করতে পারলেও তুষ্ট থাকতে পারবেন।

৪. অনেকেই প্রথমেই এমন আয়ের আশা করেন যা পুরোপুরি  অবাস্তবিক। এ ক্ষেত্রে বাস্তবসম্মত হোন। প্রযুক্তি কোনো প্রতিষ্ঠানে যোগ দিতে গিয়ে তারা শীর্ষস্থানীয় কোনো প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের মতো আয় আশা করেন। এটা ভুল চিন্তা।

৫. যাই করেন না কেন, তা অর্জন করে নেওয়ার চেষ্টা করুন। এমনিতেই এসে ধরা দেবে না। বাড়তি সুবিধাভোগের চিন্তা তখনই করতে পারেন, যখন তা আপনার প্রাপ্য হবে। আপনার চাহিদা সুষ্ঠু থাকলে প্রতিষ্ঠানও সুষ্ঠু প্রক্রিয়ায় এগিয়ে যেতে পারবে।

৬. প্রতিষ্ঠান ও সেবাগ্রহণকারীর জন্যে কিছু করার ইচ্ছা মনে পুষে রাখুন। নির্দিষ্ট কিছু কাজ ছাড়া আপনার ভূমিকা হয়তো গুরুত্বপূর্ণ নয়। কিন্তু প্রতিষ্ঠানটি সার্বিকভাবে মানুষের জন্যে এমন কিছু করছে যা গ্রহণ করতে ইচ্ছুক সবাই। প্রতিষ্ঠানের কাঠামোগত উন্নয়নের জন্যে কাজ করে যান। আপনারও উন্নয়ন ঘটবে।

৭. প্রতিষ্ঠান যে ব্যবসায় নেমেছে তার সম্পর্কে মৌলিক জ্ঞান রাখুন। এ বিষয়ে আপনাকে বিশেষজ্ঞ হতে হবে না। কিন্তু অজ্ঞ থাকাও চলবে না। প্রয়োজনে অভিজ্ঞজনদের কাছ থেকে জেনে নিন। প্রশ্ন প্রস্তুত করুন এবং তা ছুঁড়ে দিন। মৌলিক বিষয়ে জ্ঞান থাকলে আপনার উন্নতি রুখতে পারবে না কেউ।

৮. স্বচ্ছতার প্রতি আসক্ত থাকুন। প্রতিষ্ঠান হয়তো খুঁটিনাটি সব আপনাকে জানাতে পারবে না। এর জন্যে তার দিকে আঙুল তুলতে পারেন না। যে বিষয়গুলো জানলে গোটাটা পরিষ্কার হবে তা জেনে নিন। বুঝে নিন ওই প্রতিষ্ঠানে আপনার অংশ কতটুকু। যদি প্রতিষ্ঠান আপনাদের মিথ্যা তথ্য দেয়, তবে অন্যকিছু ভাবার চেষ্টা করুন।