নিউজ

তিনটি জাপানি খাবারের রেসিপি


দেশি খাবার খেতে খেতে অনেক সময় একটু বিদেশি খাবারও চেখে দেখতে ইচ্ছা করে। বিদেশি খাবারের রন্ধনপ্রণালি, মসলার ব্যবহার, সসের ব্যবহার আমাদের জিবকে কিছুটা হলেও অন্য জগতে নিয়ে যায়। আজ জাপানি তিনটি খাবারের রেসিপি থাকল।


ছাতা আন্দাগি

উপকরণ: 


ময়দা ১০০ গ্রাম, ডিম ১টি, চিনি ৫০ গ্রাম, বেকিং পাউডার আধা চা-চামচ, তেল ১ চা-চামচ ও লবণ ১ চিমটি।


প্রণালি

ময়দা, লবণ ও বেকিং পাউডার একসঙ্গে মিশিয়ে একবার চেলে নিতে হবে। একটা বোলে তারের ফেটানি দিয়ে ডিম ফেটে নিন। ফেটানোর সময় চিনি দিন। এবার এতে তেল মেশান। ময়দার মিশ্রণটি স্প্যাচুলা (একধরনের খুন্তি) দিয়ে মেশাতে হবে। খামির বানানো হয়ে গেলে ঢাকনা দিয়ে রেফ্রিজারেটরে ৩০ মিনিট রাখুন। এরপর হাতে তেল লাগিয়ে গোল বলের মতো করে তেলে অল্প আঁচে ভাজতে হবে। খেয়াল রাখুন যেন তেল খুব গরম না হয়, ১৫০–১৬০ ডিগ্রি সেলসিয়াসে থাকে। কম আঁচে ভাজলে বলগুলো ফেটে যাবে। এটাই এই ডোনাটের বৈশিষ্ট্য। জাপানিরা এই ফাটা ভাবকে হাসির সঙ্গে তুলনা করে। সব ভাজা হয়ে গেলে পরিবেশন করুন। এটি জাপানের ওকিনায়া অঞ্চলের খাবার।


ইমো কেন্ পি

উপকরণ: 


মিষ্টি আলু মাঝারি আকারের ১টি, বাটার ১০ গ্রাম, চিনি দেড় টেবিল চামচ, লবণ ১ চিমটি, তেল পরিমাণমতো (ভাজার জন্য) ও কালো তিল পরিমাণমতো।


প্রণালি

মিষ্টি আলু খোসাসহ বা ছিলে ধুয়ে লম্বা লম্বা করে কেটে নিয়ে পানিতে ২০ মিনিট ভিজিয়ে রাখুন। পানি থেকে তুলে কিচেন পেপার দিয়ে মুছে শুকিয়ে নিন। কড়াইতে তেল গরম করে ডুবো তেলে ভাজুন। হালকা রং ধরে এলে তুলে ফেলতে হবে। একটি ফ্রাইপ্যানে মাখন গলাতে হবে। এবার চিনি দিন। চিনি গলে হালকা সোনালি রং হলে তাতে ভাজা মিষ্টি আলু দিয়ে তাড়াতাড়ি উল্টে দিন। যেন আলুর গায়ে সব জায়গায় ক্যারামেল লাগে। চুলা থেকে নামিয়ে কালো জিরা এবং এক চিমটি লবণ ছিটিয়ে পরিবেশন করুন। এটি দেখতে ফ্রেঞ্চ ফ্রাইসের মতো। তাই বলা যায়, মিষ্টি আলুর ফ্রেঞ্চ ফ্রাইস।


গোইয়্যা চানপুরু

উপকরণ:


করলা ১টি, ডিম বড় ১টি (হালকা ফেটানো), টফু ছোট আকারের ১ প্যাকেট, লবণ আধা চা-চামচ, গোলমরিচ সামান্য, মেয়োনেজ ১ টেবিল চামচ, তেল ১ চা-চামচ ও টুনা মাছ (ছোট ক্যান) ১টি।


প্রণালি

করলা ধুয়ে পাতলা করে (৩ মিলিমিটার পুরু) কেটে নিয়ে সামান্য লবণ দিয়ে মেখে রাখতে হবে। টফু পেপার টাওয়েল দিয়ে মুছে নিয়ে ছোট টুকরা করে নিতে হবে। একটা ফ্রাইপ্যানে ১ চা-চামচ তেল দিয়ে টফুগুলো দুই পিঠ হালকা বাদামি করে ভেজে নিয়ে একটা বাটিতে তুলে রাখুন। এবার সেই ফ্রাইপ্যানে টুনা (ক্যানের তেলসহ) ও করলা ভাজতে হবে। গোলমরিচ দিন। সামান্য ভাজার পর মেয়োনেজ দিয়ে নেড়ে লবণ স্বাদমতো হয়েছে কি না, দেখুন। এবার ফেটানো ডিম দিয়ে নেড়ে ডিম জমাট বেঁধে এলে নামিয়ে পাত্রে ঢেলে পরিবেশন করুন।